খেলার সেই মুহূর্তগুলো কাঁদিয়েছিল বাংলাদেশকে

খেলাধুলা

আচ্ছা, ২০১৪ বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে জার্মানির কাছে ৭ গোল হজম করার পর ব্রাজিলের মানুষের মনের অবস্থা কেমন ছিল!

তাঁরা যে সেদিন কতটা হতাশ ছিলেন, সেটি আমরা সবাই জানি। গ্যালারিতেই তো খেলা চলার মধ্যেই পড়ে গিয়েছিল কান্নার রোল। এই ব্রাজিলীয়রাই ১৯৫০ বিশ্বকাপের ফাইনালে উরুগুয়ের কাছে অপ্রত্যাশিত হারের পর কী করেছিলেন! সেদিন রিও ডি জেনিরোর মারাকানা স্টেডিয়ামের ছাদ থেকে লাফিয়ে আত্মহত্যা করার দুঃখজনক কাহিনিও আমরা পড়েছি, জেনেছি বছরের পর বছর। আজও নাকি সেই ব্যর্থতা বিষাদে ছেয়ে দেয় ব্রাজিলীয়দের মন–প্রাণ।

২০১৬ কোপা আমেরিকার ফাইনালে টাইব্রেকারে লিওনেল মেসির সেই মিসের ঘটনাও নিশ্চয়ই আর্জেন্টিনার মানুষকে শোকে মূহ্যমান করেছিল। ক্রিকেটের কথাই ধরুন, ১৯৯৯ বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে ল্যান্স ক্লুজনার আর অ্যালান ডোনাল্ড মিলে ওই একটি রান নিতে গিয়েই যখন ব্যর্থ হলেন, দক্ষিণ আফ্রিকার মানুষের মনের অবস্থা কেমন হয়েছিল!

খেলার হার–জিৎ থাকলেও অনেক সময় খেলাই যখন জাতীয় আশা–আকাঙ্খা আর গৌরবের প্রতীক হয়ে ওঠে, তখন কোনো জাতির জীবনে এমন হতাশা আর বিষাদের মুহূর্ত আসতেও পারে। ক্রীড়াক্ষেত্রে দেশ হিসেবে খুব বেশি অর্জন বাংলাদেশের নেই। কিন্তু অনেক সময় খেলার দুনিয়ায় ছোটখাট অর্জনই এ দেশের মানুষকে আনন্দের সাগরে ভাসিয়েছে। আবার এই খেলাই এদেশের মানুষের হৃদয় ভেঙেছে অনেকবার। পেছনে ফিরে সে হতাশা আর বিষাদের মুহূর্তগুলো দেখে নিলে কেমন হয়?

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *