সরকারের দেয়া পোশাক কারখানার তহবিলের টাকায় কর্মকর্তাদের বেতন নয়

অর্থনৈতিক

সচল রপ্তানিমুখী কারখানার শ্রমিকদের বেতন দিতে যে পাঁচ হাজার কোটি টাকার তহবিল গঠন করা হয়েছে, তা থেকে কোনোভাবেই কর্মকর্তাদের বেতন দেওয়া যাবে না। বাংলাদেশ ব্যাংক আজ এক প্রজ্ঞাপনে ব্যাংগুলোকে এ নির্দেশনা দিয়েছে। আগের দেওয়া নীতিমালায় বিষয়টি স্পষ্ট না থাকায় আজ নতুন করে নির্দেশনা দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

এতে আরও বলা হয়েছে, এসব প্রতিষ্ঠানের কর্মচারীদের বেতন দেওয়ার জন্য জাতীয় পরিচয়পত্রের পাশাপাশি জন্মনিবন্ধন সনদও ব্যবহার করা যাবে। শ্রমিকদের বেতনের টাকা সরাসরি তাঁদের ব্যাংক হিসাব বা মোবাইল ব্যাংকিং হিসাবে পাঠাতে হবে। বেতন দিতে কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে ঋণ পাওয়ার পর ব্যাংকগুলো প্রযোজ্য হলে আয়কর ও ভবিষ্য তহবিলের টাকা কেটে বাকি টাকা বেতন হিসাবে শ্রমিকের হিসাবে পাঠাবে। প্রতিটি ব্যাংককে বেতন প্রদানের জন্য শ্রমিকদের একটি ডেটাবেইস তৈরি করতে হবে।

রপ্তানিমুখী কারখানার শ্রমিকদের বেতন দিতে পাঁচ হাজার কোটি টাকার তহবিল গঠন করেছে সরকার। ওই তহবিল পরিচালনার নীতিমালা দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। নীতিমালা অনুযায়ী, বেতনের টাকা সরাসরি শ্রমিকের হিসাবে পাঠিয়ে দেবে ব্যাংকগুলো। যাঁদের হিসাব নেই, তাদের জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) ও জন্মনিবন্ধন সনদের ভিত্তিতে মোবাইল ব্যাংকিং হিসাব (এমএফএস) খোলার উদ্যোগ নিতে হবে। শ্রমিকেরা চাইলে বিনা মাশুলে ব্যাংক হিসাবও খুলতে পারেন। ২০ এপ্রিলের মধ্যে সব শ্রমিকের হিসাব খোলা সম্পন্ন করতে বলেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। বেতনের টাকা যেন সরাসরি শ্রমিকেরা পান, এ জন্যই এ উদ্যোগ।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *